ঢাকা ১১:৪৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এবিসি ন্যাশনাল নিউজ২৪ ইপেপার

ব্রেকিং নিউজঃ
ভেড়ামারায় ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স এসোসিয়েশন আয়োজিত ঈদ পুনর্মিলনী ঠাকুরগাঁওয় পৌরসভার সড়কের বেহাল দশা, অল্প বৃষ্টিতে তলিয়ে যায় পুরো এলাকা বগুড়ার জোড়া খুনের প্রধান আসামী গ্রেফতার বালিয়াডাঙ্গীতে এইচএসসি ২০০২ ব্যাচের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত দিনাজপুরে শ্যামলী পরিবহনের ধাঁক্কায় এ্যাম্বুলেন্স চালকের মর্মান্তিক মৃত্যু রংপুরে তিস্তার পানি বিপৎসীমার ওপরে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত ডোমারে জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালিত হলো শতবর্ষী অনুষ্ঠান লালমনিরহাটে বজ্রপাতে ৫ টি গবাদিপশু পুড়ে যায় বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক সোসাইটি (বিএমএসএস) নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি এস এম জহিরুল ইসলাম বিদ্যুত ও সাধারণ সম্পাদক মো: জসিম উদ্দিন জসিম ডোমারে পবিত্র ঈদ-উল-আযহার নামাজ অনুষ্ঠিত

৭ম শ্রেণির শিক্ষার্থীর হার্ট অপারেশনের টাকা জোগাতে পারছেনা দ্ররিদ্র পিতা; বিত্তশালীদের সহযোগিতা কামনা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:৫৫:৪০ অপরাহ্ন, রবিবার, ৯ অক্টোবর ২০২২ ৪৪ বার পড়া হয়েছে

নূরুল হক, মণিরামপুর:

সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী হিমা খাতুন (১৩)। যশোর জেলার মণিরামপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের শোলাকুড় গ্রামের দরিদ্র শ্রমিক হেলাল গাজীর সন্তান। সে হার্ট ছিদ্র রোগে আক্রান্ত হয়েছে। দরিদ্র পিতা নিজ সহায় সম্বল বিক্রি, ধারদেনা ও মানুষের সাহায্য সহযোগিতা নিয়ে তার যথাসাধ্য চিকিৎসা করিয়েছেন। কিন্তু রোগ নিরাময়ের কোন লক্ষন দেখা যায়নি। এ পর্যন্ত ব্যয় হয়েছে অনেক টাকা। মেয়ের চিকিৎসা খরচ জোগাতে নিজের সহায় সম্পদ প্রায় নিঃশেষ। মেয়ের চিকিৎসার জন্য এখন সমাজের বিত্তবাণদের দ্বারস্থ্য হয়েছেন।

জানা গেছে, উপজেলার দেলুয়াবাড়ি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী হিমার জন্মের পরপরই তার হার্টে সমস্যা দেখা দেই। চিকিৎসকের পরামর্শ ও নির্দেশনা মোতাবেক তার নিয়মিত চিকিৎসা করানো ও ঔষুধ সেবণ নিয়ম মাফিক চলছিল। কিন্তু গত একবছর হিমার শাররীক অবস্থায় মারাত্মক অবণতি ঘটে। হিমার বর্তমান অবস্থা সুবিধাজনক অবস্থায় নেই বলে তার নিয়মিত চিকিৎসক মেডিসিন ও হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ সহকারী অধ্যাপক ডাঃ মোঃ শওকত আলী জানিয়েছেন। অতি দ্রুতই তার হার্টে অপারেশন করতে হবে। কারণ তার হার্টে বড় ধরনের ছিদ্র দেখা দিয়েছে। ইবনে সিনা হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, যশোর’র হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক হিমাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ভারতে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

ইতোপূর্বে হিমার বয়স যখন ৪/৫ বছর তখন তাকে ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অ্যান্ড রিসার্চ ইন্সটিটিউট—এ চিকিৎসা জন্য নেয়া হয়েছিল—তখন সেখানকার হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক একই পরামর্শ দিয়েছিলেন। কিন্তু অর্থের অভাবে ভারতে নিতে পারেনি হিমার পরিবার। বর্তমানে হিমার হার্টে মারাত্মক ছিদ্র দেখা দিয়েছে। এ জন্য ভারতে নিয়ে গিয়ে অপারেশন করতে হবে। হিমার ভারতে নিয়ে গিয়ে হার্টের ছিদ্রের অপারেশন করতে প্রায় ৫ লক্ষ টাকা প্রয়োজন। দরিদ্র শ্রমিক পিতা ও পরিবারের পক্ষে এত টাকা ব্যয় করার কোন সমর্থন নেই। যা ছিল তা হিমার চিকিৎসা করাতে আগেই শেষ হয়ে গেছে।

হিমার পিতা হেলাল গাজী বলেন, চিকিৎসার জন্য ভারতে যেতে এবং ওপেন হার্ট সার্জারীর চিকিৎসা খরচ বাবদ সর্বনিম্ন ৫ লক্ষ টাকা প্রয়োজন। কিন্তু এত টাকা ব্যায় করার মত আমার পরিবারের কোন সমর্থন নেই। তাই মেয়ের অপারেশনের জন্য সমাজের বিত্তবান মানুষের সহায়তায় কামনা করছেন তিনি।

হিমার মা সায়রা খাতুন বলেন, দু’টি সন্তানের মধ্যে হিমা বড়। মেয়েটি জন্মের পর থেকেই বিভিন্ন রোগ ব্যাধিতে আক্রান্ত হয়ে পড়েছে। তার চিকিৎসা করাতে আমাদের সব কিছু শেষ হয়ে গেছে। এখন মেয়েটির অপারেশনে প্রচুর টাকা প্রয়োজন। এজন্য সবার সাহায্য কামনা করছি।

এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ আলমগীর হোসেন হেলাল বলেন, হেলাল গাজী আমার ওয়ার্ডের বাসিন্দা। সে খুবই দরিদ্র, সে শ্রমিকের কাজ করে তার সংসার চলে। সৃষ্টিকর্তা তার মেয়েটির এ জটিল রোগ দিয়েছে। তার অপারেশনের জন্য অনেক টাকার প্রয়োজন তাই সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসার অনুরোধ করছি।

হিমার অপারেশনের জন্য সাহায্য পাঠাতে পারেন—বিকাশ (পারসোনাল)—০১৯৩৬০১০৯০১ (নিকটতম প্রতিবেশি) অথবা—০১৯৩৭১৫১৭৭৩ (নিকটতম প্রতিবেশি)। বিস্তারিত জানতে হিমার পিতার ০১৬৩৯৫৩৬৪২০ এই মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন।

শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

৭ম শ্রেণির শিক্ষার্থীর হার্ট অপারেশনের টাকা জোগাতে পারছেনা দ্ররিদ্র পিতা; বিত্তশালীদের সহযোগিতা কামনা

আপডেট সময় : ১১:৫৫:৪০ অপরাহ্ন, রবিবার, ৯ অক্টোবর ২০২২

নূরুল হক, মণিরামপুর:

সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী হিমা খাতুন (১৩)। যশোর জেলার মণিরামপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের শোলাকুড় গ্রামের দরিদ্র শ্রমিক হেলাল গাজীর সন্তান। সে হার্ট ছিদ্র রোগে আক্রান্ত হয়েছে। দরিদ্র পিতা নিজ সহায় সম্বল বিক্রি, ধারদেনা ও মানুষের সাহায্য সহযোগিতা নিয়ে তার যথাসাধ্য চিকিৎসা করিয়েছেন। কিন্তু রোগ নিরাময়ের কোন লক্ষন দেখা যায়নি। এ পর্যন্ত ব্যয় হয়েছে অনেক টাকা। মেয়ের চিকিৎসা খরচ জোগাতে নিজের সহায় সম্পদ প্রায় নিঃশেষ। মেয়ের চিকিৎসার জন্য এখন সমাজের বিত্তবাণদের দ্বারস্থ্য হয়েছেন।

জানা গেছে, উপজেলার দেলুয়াবাড়ি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী হিমার জন্মের পরপরই তার হার্টে সমস্যা দেখা দেই। চিকিৎসকের পরামর্শ ও নির্দেশনা মোতাবেক তার নিয়মিত চিকিৎসা করানো ও ঔষুধ সেবণ নিয়ম মাফিক চলছিল। কিন্তু গত একবছর হিমার শাররীক অবস্থায় মারাত্মক অবণতি ঘটে। হিমার বর্তমান অবস্থা সুবিধাজনক অবস্থায় নেই বলে তার নিয়মিত চিকিৎসক মেডিসিন ও হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ সহকারী অধ্যাপক ডাঃ মোঃ শওকত আলী জানিয়েছেন। অতি দ্রুতই তার হার্টে অপারেশন করতে হবে। কারণ তার হার্টে বড় ধরনের ছিদ্র দেখা দিয়েছে। ইবনে সিনা হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, যশোর’র হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক হিমাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ভারতে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

ইতোপূর্বে হিমার বয়স যখন ৪/৫ বছর তখন তাকে ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অ্যান্ড রিসার্চ ইন্সটিটিউট—এ চিকিৎসা জন্য নেয়া হয়েছিল—তখন সেখানকার হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক একই পরামর্শ দিয়েছিলেন। কিন্তু অর্থের অভাবে ভারতে নিতে পারেনি হিমার পরিবার। বর্তমানে হিমার হার্টে মারাত্মক ছিদ্র দেখা দিয়েছে। এ জন্য ভারতে নিয়ে গিয়ে অপারেশন করতে হবে। হিমার ভারতে নিয়ে গিয়ে হার্টের ছিদ্রের অপারেশন করতে প্রায় ৫ লক্ষ টাকা প্রয়োজন। দরিদ্র শ্রমিক পিতা ও পরিবারের পক্ষে এত টাকা ব্যয় করার কোন সমর্থন নেই। যা ছিল তা হিমার চিকিৎসা করাতে আগেই শেষ হয়ে গেছে।

হিমার পিতা হেলাল গাজী বলেন, চিকিৎসার জন্য ভারতে যেতে এবং ওপেন হার্ট সার্জারীর চিকিৎসা খরচ বাবদ সর্বনিম্ন ৫ লক্ষ টাকা প্রয়োজন। কিন্তু এত টাকা ব্যায় করার মত আমার পরিবারের কোন সমর্থন নেই। তাই মেয়ের অপারেশনের জন্য সমাজের বিত্তবান মানুষের সহায়তায় কামনা করছেন তিনি।

হিমার মা সায়রা খাতুন বলেন, দু’টি সন্তানের মধ্যে হিমা বড়। মেয়েটি জন্মের পর থেকেই বিভিন্ন রোগ ব্যাধিতে আক্রান্ত হয়ে পড়েছে। তার চিকিৎসা করাতে আমাদের সব কিছু শেষ হয়ে গেছে। এখন মেয়েটির অপারেশনে প্রচুর টাকা প্রয়োজন। এজন্য সবার সাহায্য কামনা করছি।

এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ আলমগীর হোসেন হেলাল বলেন, হেলাল গাজী আমার ওয়ার্ডের বাসিন্দা। সে খুবই দরিদ্র, সে শ্রমিকের কাজ করে তার সংসার চলে। সৃষ্টিকর্তা তার মেয়েটির এ জটিল রোগ দিয়েছে। তার অপারেশনের জন্য অনেক টাকার প্রয়োজন তাই সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসার অনুরোধ করছি।

হিমার অপারেশনের জন্য সাহায্য পাঠাতে পারেন—বিকাশ (পারসোনাল)—০১৯৩৬০১০৯০১ (নিকটতম প্রতিবেশি) অথবা—০১৯৩৭১৫১৭৭৩ (নিকটতম প্রতিবেশি)। বিস্তারিত জানতে হিমার পিতার ০১৬৩৯৫৩৬৪২০ এই মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন।

শেয়ার করুন