ঢাকা ০৭:৪৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এবিসি ন্যাশনাল নিউজ২৪ ইপেপার

ব্রেকিং নিউজঃ
লালপুরে পদ্মার চরে মিলল ৪ রাসেল ভাইপার খোকসা উসাসের পক্ষে থেকে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যানকে ফুলের শুভেচ্ছা। বগুড়ায় নারী চিকিৎসক মাত্রাতিরিক্ত ঘুমের ট্যালেট সেবনে আত্মহত্যা তিস্তা সেতুর মাঝখানে ফাটল আতঙ্কে পথযাত্রীরা। ঈমান রক্ষার দোয়া। হাফিজ মাছুম আহমদ দুধরচকী। ভারতের সঙ্গে সম্পর্ককে বিশেষ গুরুত্ব দেয় বাংলাদেশ: শেখ হাসিনা আমতলীতে বৌ-ভাতের অনুষ্ঠানে আসার পথে ব্রীজ ভেঙ্গে ৯জন নিহত ঢাকা-দিল্লি সম্পর্ক আরও গভীর করতে ৭টি নতুন সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর ঠাকুরগাঁওয়ে পুলিশের অভিযানে ৫ মাদক ব্যবসায়ি গ্রেফতার –মাদক উদ্ধার ! দিল্লী সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

সিলেটের আদালত পাড়ায় ময়লার স্থূপ,দেখার যেন কেউ নেই 

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:৩৪:৩৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১২ অক্টোবর ২০২২ ৫৩ বার পড়া হয়েছে

তোফায়েল আহমদঃ সিলেট

বাংলাদেশের ঐতিহ্য বাহী ৩৬০ আওলিয়ার পূন্যভূমি ও শাহজালাল ও শাহপরানের স্মৃতি বিজরিত দুটি পাতা একটি কুড়ির নগরী সিলেট।

ভোর হলেই এখানে বেড়াতে আসেন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পর্যটকরা। সিলেট সুরমা নদীর তীরে আর সিলেট জেলা পরিষদের সামনেই অবস্থান সিলেট জেলা জজ আদালত।

আদালত চত্বরে সকাল থেকেই হাজারো সমস্যা নিয়ে ভীড় করে লোকজন।

গত ২২/০৯/২০২২ ইং তারিখে একজন বৃটেন প্রবাসী বিয়ানীবাজারের এনামুল হক চৌধুরী আসেন জেলা জজ আদালতে সাথে ছিলাম আমি।

হঠাত জেলা প্রশাসকের গেইটে ঢুকে আমরা রওয়ানা দিলাম এডভোকেট বার হল নং – ৩ এ যাওয়ার জন্য, রাস্তার পাশে ষ্ট্যাম্প ভ্যেন্ডারের ব্যবসার পাশেই গলির উপরে মানুষ উঁকিঝুঁকি দিয়ে হাটছে, এখানে বাথরুমের ময়লা ভেসে আসছে আর দুর্গন্ধে মুখ, নাক বন্ধ করলেন এনামুল হক চৌধুরী, পাশেই রাখা একটি হাত ধোয়ার বেসিন, বেসিনের দিকে চোখ পড়ার সাথে সাথে তিনি আমাকে বললেন তোমরা কিসের সাংবাদিক? তোমাদের কি কোন দায়িত্ব নেই? এই যে বেসিনকে ময়লার ডাষ্টবিন বানানো হয়েছে, বেসিনের ট্যাপ গুলো খুলে নিয়ে গেছে কে বা কারা? আরেকটু পর আমরা বিয়ানীবাজার কোর্টে গেলাম সেখানে গিয়ে দেখলাম স্বাক্ষীর কাঠগড়া ভেঙে পড়ে যাচ্ছে, এনামুল হক চৌধুরী পেশকারের সাথে কথা বলার ফাঁকে জিজ্ঞেস করলেন একি অবস্থা? এগুলো কি দেখেন না কেউ? পেশকার বলল দেখেন দরজা ভাঙা, সকেছ ভেঙে পড়ছে আমরা আবেদন করেছি কোন সুরাহা হচ্ছে না।

তাইলে আইনমন্ত্রী কি কোন বাজেট পান না? এই বাজেট গুলো যায় কোথায়?

সিলেটের এমন ময়লার ভাগাড় দেখে কে না বিচলিত আর নাক, মুখ বন্ধ করবে না? এভাবে আর কতদিন চলবে? এই দূরবস্থা দেখার যেন কেউ নেই।

আদালত পাড়ায় এডভোকেট, মেজিষ্ট্রেট,জজ,মরির, ডি সি, সহ কত ভি আই পিদের চলাচল, এরা কি দেখেন না? এদের কি কোন দায়িত্ব নেই?

বিষয়টি আমলে নিয়ে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছি। অতি শীঘ্রই আদালত পাড়ার পরিবেশ ফিরিয়ে আনা হোক। সিলেটকে ডিজিটাল নগরী বলা হয় যার সম্মানটুকু ধরে রাখার দায়িত্ব আমাদের সিলেটের দায়িত্বশীল কর্তৃপক্ষের।

শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

সিলেটের আদালত পাড়ায় ময়লার স্থূপ,দেখার যেন কেউ নেই 

আপডেট সময় : ১০:৩৪:৩৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১২ অক্টোবর ২০২২

তোফায়েল আহমদঃ সিলেট

বাংলাদেশের ঐতিহ্য বাহী ৩৬০ আওলিয়ার পূন্যভূমি ও শাহজালাল ও শাহপরানের স্মৃতি বিজরিত দুটি পাতা একটি কুড়ির নগরী সিলেট।

ভোর হলেই এখানে বেড়াতে আসেন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পর্যটকরা। সিলেট সুরমা নদীর তীরে আর সিলেট জেলা পরিষদের সামনেই অবস্থান সিলেট জেলা জজ আদালত।

আদালত চত্বরে সকাল থেকেই হাজারো সমস্যা নিয়ে ভীড় করে লোকজন।

গত ২২/০৯/২০২২ ইং তারিখে একজন বৃটেন প্রবাসী বিয়ানীবাজারের এনামুল হক চৌধুরী আসেন জেলা জজ আদালতে সাথে ছিলাম আমি।

হঠাত জেলা প্রশাসকের গেইটে ঢুকে আমরা রওয়ানা দিলাম এডভোকেট বার হল নং – ৩ এ যাওয়ার জন্য, রাস্তার পাশে ষ্ট্যাম্প ভ্যেন্ডারের ব্যবসার পাশেই গলির উপরে মানুষ উঁকিঝুঁকি দিয়ে হাটছে, এখানে বাথরুমের ময়লা ভেসে আসছে আর দুর্গন্ধে মুখ, নাক বন্ধ করলেন এনামুল হক চৌধুরী, পাশেই রাখা একটি হাত ধোয়ার বেসিন, বেসিনের দিকে চোখ পড়ার সাথে সাথে তিনি আমাকে বললেন তোমরা কিসের সাংবাদিক? তোমাদের কি কোন দায়িত্ব নেই? এই যে বেসিনকে ময়লার ডাষ্টবিন বানানো হয়েছে, বেসিনের ট্যাপ গুলো খুলে নিয়ে গেছে কে বা কারা? আরেকটু পর আমরা বিয়ানীবাজার কোর্টে গেলাম সেখানে গিয়ে দেখলাম স্বাক্ষীর কাঠগড়া ভেঙে পড়ে যাচ্ছে, এনামুল হক চৌধুরী পেশকারের সাথে কথা বলার ফাঁকে জিজ্ঞেস করলেন একি অবস্থা? এগুলো কি দেখেন না কেউ? পেশকার বলল দেখেন দরজা ভাঙা, সকেছ ভেঙে পড়ছে আমরা আবেদন করেছি কোন সুরাহা হচ্ছে না।

তাইলে আইনমন্ত্রী কি কোন বাজেট পান না? এই বাজেট গুলো যায় কোথায়?

সিলেটের এমন ময়লার ভাগাড় দেখে কে না বিচলিত আর নাক, মুখ বন্ধ করবে না? এভাবে আর কতদিন চলবে? এই দূরবস্থা দেখার যেন কেউ নেই।

আদালত পাড়ায় এডভোকেট, মেজিষ্ট্রেট,জজ,মরির, ডি সি, সহ কত ভি আই পিদের চলাচল, এরা কি দেখেন না? এদের কি কোন দায়িত্ব নেই?

বিষয়টি আমলে নিয়ে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছি। অতি শীঘ্রই আদালত পাড়ার পরিবেশ ফিরিয়ে আনা হোক। সিলেটকে ডিজিটাল নগরী বলা হয় যার সম্মানটুকু ধরে রাখার দায়িত্ব আমাদের সিলেটের দায়িত্বশীল কর্তৃপক্ষের।

শেয়ার করুন