ঢাকা ১২:৫৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এবিসি ন্যাশনাল নিউজ২৪ ইপেপার

ব্রেকিং নিউজঃ
ভেড়ামারায় ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স এসোসিয়েশন আয়োজিত ঈদ পুনর্মিলনী ঠাকুরগাঁওয় পৌরসভার সড়কের বেহাল দশা, অল্প বৃষ্টিতে তলিয়ে যায় পুরো এলাকা বগুড়ার জোড়া খুনের প্রধান আসামী গ্রেফতার বালিয়াডাঙ্গীতে এইচএসসি ২০০২ ব্যাচের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত দিনাজপুরে শ্যামলী পরিবহনের ধাঁক্কায় এ্যাম্বুলেন্স চালকের মর্মান্তিক মৃত্যু রংপুরে তিস্তার পানি বিপৎসীমার ওপরে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত ডোমারে জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালিত হলো শতবর্ষী অনুষ্ঠান লালমনিরহাটে বজ্রপাতে ৫ টি গবাদিপশু পুড়ে যায় বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক সোসাইটি (বিএমএসএস) নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি এস এম জহিরুল ইসলাম বিদ্যুত ও সাধারণ সম্পাদক মো: জসিম উদ্দিন জসিম ডোমারে পবিত্র ঈদ-উল-আযহার নামাজ অনুষ্ঠিত

সাবধান ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় সিত্রাং

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:২৪:৪১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ অক্টোবর ২০২২ ৪৪ বার পড়া হয়েছে

কামরুল ইসলাম চট্টগ্রাম –

বঙ্গোপসাগরের গভীর নিম্নচাপটি আরো শক্তিশালী হয়ে ঘূর্ণিঝড় সিত্রাং-এ পরিণত হয়েছে। এটি আজ সোমবার মধ্যরাত থেকে আগামীকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যার মধ্যে দেশের উপকূলে আঘাত হানতে পারে। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে চট্টগ্রামসহ দেশের ১৯টি উপকূলীয় জেলাকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। এসব জেলা এবং জেলাগুলোর অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহে অধিক উচ্চতার বায়ুতাড়িত জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে বলে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে।

 

এমন পরিস্থিতিতে আবহাওয়া অধিদপ্তরের সর্বশেষ বুলেটিনে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহের জন্য ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত জারি করেছে। এতে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার সকল নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে। এদিকে ভারতীয় আবহাওয়া অফিসের তথ্য অনুযায়ী, ঘূর্ণিঝড়টির বর্তমান গতি-প্রকৃতি বজায় থাকলে তা আগামীকাল মঙ্গলবার ভোরের দিকে বরিশাল বিভাগের তিনকোনা দ্বীপ ও চট্টগ্রামের সন্দ্বীপের কাছ দিয়ে বাংলাদেশ উপকূল অতিক্রম করতে পারে। দেশটির আবহাওয়াবিদগণ মনে করেন, ঘূর্ণিবায়ুর চক্রটি বাঁক নিয়ে উত্তর উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হতে পারে এবং শক্তি বাড়িয়ে আজ সোমবার প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে।

 

উল্লেখ্য, আন্দামান সাগর ও দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড়টি লঘুচাপ আকারে সৃষ্টি হয়েছিল ২০ অক্টোবর সকাল সাড়ে ৯টায়। সেটি ধীরে ধীরে ২১ অক্টোবর দুপুর ১২টায় সুস্পষ্ট লঘুচাপে পরিণত হয়। ২২ অক্টোবর নিম্নচাপ এবং গতকাল গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। সর্বশেষ গতকাল সন্ধ্যায় ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়।

চট্টগ্রামে প্রস্তুতি কেমন : ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ের প্রভাবে সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে প্রস্তুতি শুরু করেছে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক), জেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগসহ অন্যান্য সেবা সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো। এর অংশ হিসেবে আজ প্রস্তুতি সভা করবে চসিক। ঘূর্ণিঝড়ের গতিপ্রকৃতির উপর নির্ভর করে চসিকের উদ্যোগে খোলা হতে পারে কন্ট্রোল রুম। তবে গতকাল নগরের উপকূলীয় এলাকাগুলোর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে প্রস্তুত রাখার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এসব তথ্য আজাদীকে নিশ্চিত করেছেন সিটি মেয়রের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম। এদিকে সিভিল সার্জন জেলার আওতাধীন স্বাস্থ্য বিভাগের সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করে বাধ্যতামূলকভাবে কর্মস্থলে অবস্থান এবং মেডিকেল টিম গঠন করে প্রস্তুত রাখারও নির্দেশনা দিয়েছেন।

 

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের এনডিসি তৌহিদুল ইসলাম গনমাধ্যমকে বলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের প্রস্তুত থাকার জন্য জেলা প্রশাসক মহোদয় নির্দেশনা দিয়েছেন। ভলান্টিয়ারদের প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ের গতিপ্রকৃতির উপর নির্ভর করে আগামীকাল (আজ) প্রস্তুতি সভা হতে পারে। সেখানে সমগ্রিক প্রস্তুতির বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।

শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

সাবধান ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় সিত্রাং

আপডেট সময় : ১১:২৪:৪১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ অক্টোবর ২০২২

কামরুল ইসলাম চট্টগ্রাম –

বঙ্গোপসাগরের গভীর নিম্নচাপটি আরো শক্তিশালী হয়ে ঘূর্ণিঝড় সিত্রাং-এ পরিণত হয়েছে। এটি আজ সোমবার মধ্যরাত থেকে আগামীকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যার মধ্যে দেশের উপকূলে আঘাত হানতে পারে। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে চট্টগ্রামসহ দেশের ১৯টি উপকূলীয় জেলাকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। এসব জেলা এবং জেলাগুলোর অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহে অধিক উচ্চতার বায়ুতাড়িত জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে বলে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে।

 

এমন পরিস্থিতিতে আবহাওয়া অধিদপ্তরের সর্বশেষ বুলেটিনে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহের জন্য ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত জারি করেছে। এতে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার সকল নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে। এদিকে ভারতীয় আবহাওয়া অফিসের তথ্য অনুযায়ী, ঘূর্ণিঝড়টির বর্তমান গতি-প্রকৃতি বজায় থাকলে তা আগামীকাল মঙ্গলবার ভোরের দিকে বরিশাল বিভাগের তিনকোনা দ্বীপ ও চট্টগ্রামের সন্দ্বীপের কাছ দিয়ে বাংলাদেশ উপকূল অতিক্রম করতে পারে। দেশটির আবহাওয়াবিদগণ মনে করেন, ঘূর্ণিবায়ুর চক্রটি বাঁক নিয়ে উত্তর উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হতে পারে এবং শক্তি বাড়িয়ে আজ সোমবার প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে।

 

উল্লেখ্য, আন্দামান সাগর ও দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড়টি লঘুচাপ আকারে সৃষ্টি হয়েছিল ২০ অক্টোবর সকাল সাড়ে ৯টায়। সেটি ধীরে ধীরে ২১ অক্টোবর দুপুর ১২টায় সুস্পষ্ট লঘুচাপে পরিণত হয়। ২২ অক্টোবর নিম্নচাপ এবং গতকাল গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। সর্বশেষ গতকাল সন্ধ্যায় ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়।

চট্টগ্রামে প্রস্তুতি কেমন : ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ের প্রভাবে সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে প্রস্তুতি শুরু করেছে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক), জেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগসহ অন্যান্য সেবা সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো। এর অংশ হিসেবে আজ প্রস্তুতি সভা করবে চসিক। ঘূর্ণিঝড়ের গতিপ্রকৃতির উপর নির্ভর করে চসিকের উদ্যোগে খোলা হতে পারে কন্ট্রোল রুম। তবে গতকাল নগরের উপকূলীয় এলাকাগুলোর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে প্রস্তুত রাখার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এসব তথ্য আজাদীকে নিশ্চিত করেছেন সিটি মেয়রের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম। এদিকে সিভিল সার্জন জেলার আওতাধীন স্বাস্থ্য বিভাগের সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করে বাধ্যতামূলকভাবে কর্মস্থলে অবস্থান এবং মেডিকেল টিম গঠন করে প্রস্তুত রাখারও নির্দেশনা দিয়েছেন।

 

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের এনডিসি তৌহিদুল ইসলাম গনমাধ্যমকে বলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের প্রস্তুত থাকার জন্য জেলা প্রশাসক মহোদয় নির্দেশনা দিয়েছেন। ভলান্টিয়ারদের প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ের গতিপ্রকৃতির উপর নির্ভর করে আগামীকাল (আজ) প্রস্তুতি সভা হতে পারে। সেখানে সমগ্রিক প্রস্তুতির বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।

শেয়ার করুন