ঢাকা ০৭:৩৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এবিসি ন্যাশনাল নিউজ২৪ ইপেপার

ব্রেকিং নিউজঃ
ঠাকুরগাঁওয় পৌরসভার সড়কের বেহাল দশা, অল্প বৃষ্টিতে তলিয়ে যায় পুরো এলাকা বগুড়ার জোড়া খুনের প্রধান আসামী গ্রেফতার বালিয়াডাঙ্গীতে এইচএসসি ২০০২ ব্যাচের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত দিনাজপুরে শ্যামলী পরিবহনের ধাঁক্কায় এ্যাম্বুলেন্স চালকের মর্মান্তিক মৃত্যু রংপুরে তিস্তার পানি বিপৎসীমার ওপরে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত ডোমারে জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালিত হলো শতবর্ষী অনুষ্ঠান লালমনিরহাটে বজ্রপাতে ৫ টি গবাদিপশু পুড়ে যায় বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক সোসাইটি (বিএমএসএস) নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি এস এম জহিরুল ইসলাম বিদ্যুত ও সাধারণ সম্পাদক মো: জসিম উদ্দিন জসিম ডোমারে পবিত্র ঈদ-উল-আযহার নামাজ অনুষ্ঠিত পবিত্র ঈদুল আযহার জামাতে পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে : ডিএমপি কমিশনার

বৃষ্টি কামনায় সালাতুল ইসতিসকা ও দোয়া আদায়

মাটি মামুন রংপুর
  • আপডেট সময় : ০৯:০৬:০৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪ ৫১ বার পড়া হয়েছে

 

বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ৯টায়
রংপুর নগরীর জুম্পাপাড়ার আলহেরা ইনস্টিটিউট স্কুল মাঠে শত শত মুসল্লি এ নামাজে অংশ নেন ।
মুসল্লিরা বলেন, বৃষ্টি না হওয়ায় প্রকৃতি উত্তপ্ত হয়ে
উঠছে।
স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় বিরূপ প্রভাব পড়েছে। কৃষি ক্ষেত্রে বিপর্যয় নেমে এসেছে।
ইসলামিক গবেষক এবং এই ইসতিসকা নামাজের
ইমাম মাওলানা ইকবাল হোসেন জানান, নবী
করিম সা:-এর যুগেও অনাবৃষ্টির সময়ে এভাবেই
ইসতিসকার নামাজ হয়েছে।
এরপর বৃষ্টি হয়েছে।
এ কারণে অনাবৃষ্টির সময় বৃষ্টির জন্য ইসলাম
ধর্মাবলম্বীরা এই নামাজ আদায় করে থাকেন।
নামাজ শেষে তারা মহান আল্লাহর কাছে বৃষ্টি জন্য
প্রার্থনা করেন।
রংপুর আবহাওয়া অফিসের তথ্য মতে, গত
অক্টোবর, নভেম্বর, ডিসেম্বর, জানুয়ারি ও
ফেব্রুয়ারি মাসে এক ফোটাও বৃষ্টি হয়নি রংপুর
অঞ্চলে।
শুধু মার্চ মাসে হয়েছিল ৯৮ দশমিক ১৮
মিলিমিটার বৃষ্টি।
এপ্রিল মাসেও দেখা মিলছে না বৃষ্টির।

শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

বৃষ্টি কামনায় সালাতুল ইসতিসকা ও দোয়া আদায়

আপডেট সময় : ০৯:০৬:০৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪

 

বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ৯টায়
রংপুর নগরীর জুম্পাপাড়ার আলহেরা ইনস্টিটিউট স্কুল মাঠে শত শত মুসল্লি এ নামাজে অংশ নেন ।
মুসল্লিরা বলেন, বৃষ্টি না হওয়ায় প্রকৃতি উত্তপ্ত হয়ে
উঠছে।
স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় বিরূপ প্রভাব পড়েছে। কৃষি ক্ষেত্রে বিপর্যয় নেমে এসেছে।
ইসলামিক গবেষক এবং এই ইসতিসকা নামাজের
ইমাম মাওলানা ইকবাল হোসেন জানান, নবী
করিম সা:-এর যুগেও অনাবৃষ্টির সময়ে এভাবেই
ইসতিসকার নামাজ হয়েছে।
এরপর বৃষ্টি হয়েছে।
এ কারণে অনাবৃষ্টির সময় বৃষ্টির জন্য ইসলাম
ধর্মাবলম্বীরা এই নামাজ আদায় করে থাকেন।
নামাজ শেষে তারা মহান আল্লাহর কাছে বৃষ্টি জন্য
প্রার্থনা করেন।
রংপুর আবহাওয়া অফিসের তথ্য মতে, গত
অক্টোবর, নভেম্বর, ডিসেম্বর, জানুয়ারি ও
ফেব্রুয়ারি মাসে এক ফোটাও বৃষ্টি হয়নি রংপুর
অঞ্চলে।
শুধু মার্চ মাসে হয়েছিল ৯৮ দশমিক ১৮
মিলিমিটার বৃষ্টি।
এপ্রিল মাসেও দেখা মিলছে না বৃষ্টির।

শেয়ার করুন