ঢাকা ১১:২১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এবিসি ন্যাশনাল নিউজ২৪ ইপেপার

ব্রেকিং নিউজঃ
ভেড়ামারায় ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স এসোসিয়েশন আয়োজিত ঈদ পুনর্মিলনী ঠাকুরগাঁওয় পৌরসভার সড়কের বেহাল দশা, অল্প বৃষ্টিতে তলিয়ে যায় পুরো এলাকা বগুড়ার জোড়া খুনের প্রধান আসামী গ্রেফতার বালিয়াডাঙ্গীতে এইচএসসি ২০০২ ব্যাচের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত দিনাজপুরে শ্যামলী পরিবহনের ধাঁক্কায় এ্যাম্বুলেন্স চালকের মর্মান্তিক মৃত্যু রংপুরে তিস্তার পানি বিপৎসীমার ওপরে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত ডোমারে জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালিত হলো শতবর্ষী অনুষ্ঠান লালমনিরহাটে বজ্রপাতে ৫ টি গবাদিপশু পুড়ে যায় বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক সোসাইটি (বিএমএসএস) নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি এস এম জহিরুল ইসলাম বিদ্যুত ও সাধারণ সম্পাদক মো: জসিম উদ্দিন জসিম ডোমারে পবিত্র ঈদ-উল-আযহার নামাজ অনুষ্ঠিত

এমপি আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরীর ছোট ভাই লড়ছেন চেয়ারম্যান পদে

দৌলতপুর প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৭:৪৫:১৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪ ৮১ বার পড়া হয়েছে

 

এমপি আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরীর ছোট ভাই লড়ছেন চেয়ারম্যান পদে,
কুষ্টিয়া-১ আসনের এমপি আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরী বলেন, উপজেলার সব ইউনিটের নেতা-কর্মী আমার বাড়িতে এসে টোকেন চৌধুরী কে উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে চেয়েছে। আমি বাধ্য হয়ে তাদের বলেছি। তোমরা যেহেতু তাকে প্রার্থী হিসেবে চাচ্ছো তাহলে নেও। কিন্তু আমি কাউকে কিছু বলতে পারব না।
কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের সংসদ সদস্য এবং দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরীর ছোট ভাইয়ের রাজনৈতিক সমীকরণ নিয়ে নানা আলোচনা শুরু হয়েছে।

বড় ভাই এমপি হওয়ার কারণেই ছোট ভাই এখন নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে দাবি করেছেন উপজেলার রাজনৈতিক নেতাদের অনেকে। তবে এমপি আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরী বলছেন, এই চাওয়া নেতা-কর্মীদের।

এমপি আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরীর ছোট ভাই দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি বুলবুল আহমেদ টোকেন চৌধুরী আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

নেতা-কর্মীদের কেউ কেউ অভিযোগ করেছেন, পুরো উপজেলায় নিজের পরিবারতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে ছোট ভাই কে উপজেলা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করাতে যাচ্ছেন এমপি আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরী।

এ নিয়ে উপজেলার নেতা-কর্মীদের মাঝে ক্ষোভ ও হতাশা বিরাজ করছে। নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না বলে আশঙ্কা ভোটার ও নেতাকর্মীদের।

উপজেলার সর্বস্তরের নেতৃবৃন্দ এবং সচেতন মহল নিন্দা জানাচ্ছে এই পরিবারের এই ধরনের কর্মকান্ডের জন্য।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা-কর্মী জানান, নিজ উপজেলার রাজনীতি নিজেদের কবজায় রাখার জন্য সংসদ সদস্য আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরী তার ছোট ভাই কে উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী করেছেন।

নেতা-কর্মীরা আরও জানান, আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কাউকে সমর্থন না দিতে ও নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার না করতে এমপি-মন্ত্রীদের নির্দেশ দিয়েছেন। কিন্তু এমপি আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরীর সমর্থনেই তার ছোট ভাই উপজেলা চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন। এমপি’র ছোট ভাই উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়ায় আর কেউই প্রার্থী হতে সাহস পাচ্ছেন না। সে ক্ষেত্রে এমপি’র ভাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হতে পারেন।

এ বিষয়ে দৌলতপুর উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ এজাজ আহমেদ মামুন বলেন, ‘আমি নির্বাচনে প্রার্থী হতে চেয়েছিলাম। কিন্তু এমপির ছোট ভাই যেখানে প্রার্থী হচ্ছে, সেখানে নির্বাচন কোনোভাবেই প্রভাবমুক্ত হবে না। আমি এ কারণে প্রার্থী হচ্ছি কি না ভাবছি।’

দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি টিপু নেওয়াজ বলেন, ‘এসব বলে কী লাভ বলেন। দলের নির্দেশনা খোদ এমপি সাহেব মানেন না। তার ভয়ে কোনো নেতা কিছু বলে সাহস পায় না। নেতাদের ডেকে এমপি বলেন দেন- তোমরা লোকজন নিয়ে আমার বাড়িতে গিয়ে আমার ভাইকে তোমাদের জন্য চাইবে। ব্যস, এক দুই শ মোটরসাইকেল নিয়ে নেতা-কর্মী তার বাড়িতে গিয়ে তার ভাইকে উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে চাইবে তাই তার ভাই কে উপজেলা চেয়ারম্যান করার অনুমতি দিয়েছেন। এটা তার কৌশল।’

এ বিষয়ে দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী যুব লীগের সভাপতি ও চেয়ারম্যান প্রার্থী বুলবুল আহমেদ টোকেন চৌধুরী বলেন, উপজেলার সব নেতাকর্মী এমপি সাহেবের বাড়িতে গিয়ে আমাকে উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী করতে অনুরোধ করেছেন, এভাবেই জনগণের চাপেই আমি প্রার্থী হয়েছি। আপাতত উপজেলা নির্বাচন নিয়েই ব্যস্ত আছি।

শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

এমপি আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরীর ছোট ভাই লড়ছেন চেয়ারম্যান পদে

আপডেট সময় : ০৭:৪৫:১৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪

 

এমপি আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরীর ছোট ভাই লড়ছেন চেয়ারম্যান পদে,
কুষ্টিয়া-১ আসনের এমপি আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরী বলেন, উপজেলার সব ইউনিটের নেতা-কর্মী আমার বাড়িতে এসে টোকেন চৌধুরী কে উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে চেয়েছে। আমি বাধ্য হয়ে তাদের বলেছি। তোমরা যেহেতু তাকে প্রার্থী হিসেবে চাচ্ছো তাহলে নেও। কিন্তু আমি কাউকে কিছু বলতে পারব না।
কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের সংসদ সদস্য এবং দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরীর ছোট ভাইয়ের রাজনৈতিক সমীকরণ নিয়ে নানা আলোচনা শুরু হয়েছে।

বড় ভাই এমপি হওয়ার কারণেই ছোট ভাই এখন নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে দাবি করেছেন উপজেলার রাজনৈতিক নেতাদের অনেকে। তবে এমপি আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরী বলছেন, এই চাওয়া নেতা-কর্মীদের।

এমপি আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরীর ছোট ভাই দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি বুলবুল আহমেদ টোকেন চৌধুরী আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

নেতা-কর্মীদের কেউ কেউ অভিযোগ করেছেন, পুরো উপজেলায় নিজের পরিবারতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে ছোট ভাই কে উপজেলা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করাতে যাচ্ছেন এমপি আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরী।

এ নিয়ে উপজেলার নেতা-কর্মীদের মাঝে ক্ষোভ ও হতাশা বিরাজ করছে। নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না বলে আশঙ্কা ভোটার ও নেতাকর্মীদের।

উপজেলার সর্বস্তরের নেতৃবৃন্দ এবং সচেতন মহল নিন্দা জানাচ্ছে এই পরিবারের এই ধরনের কর্মকান্ডের জন্য।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা-কর্মী জানান, নিজ উপজেলার রাজনীতি নিজেদের কবজায় রাখার জন্য সংসদ সদস্য আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরী তার ছোট ভাই কে উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী করেছেন।

নেতা-কর্মীরা আরও জানান, আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কাউকে সমর্থন না দিতে ও নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার না করতে এমপি-মন্ত্রীদের নির্দেশ দিয়েছেন। কিন্তু এমপি আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরীর সমর্থনেই তার ছোট ভাই উপজেলা চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন। এমপি’র ছোট ভাই উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়ায় আর কেউই প্রার্থী হতে সাহস পাচ্ছেন না। সে ক্ষেত্রে এমপি’র ভাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হতে পারেন।

এ বিষয়ে দৌলতপুর উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ এজাজ আহমেদ মামুন বলেন, ‘আমি নির্বাচনে প্রার্থী হতে চেয়েছিলাম। কিন্তু এমপির ছোট ভাই যেখানে প্রার্থী হচ্ছে, সেখানে নির্বাচন কোনোভাবেই প্রভাবমুক্ত হবে না। আমি এ কারণে প্রার্থী হচ্ছি কি না ভাবছি।’

দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি টিপু নেওয়াজ বলেন, ‘এসব বলে কী লাভ বলেন। দলের নির্দেশনা খোদ এমপি সাহেব মানেন না। তার ভয়ে কোনো নেতা কিছু বলে সাহস পায় না। নেতাদের ডেকে এমপি বলেন দেন- তোমরা লোকজন নিয়ে আমার বাড়িতে গিয়ে আমার ভাইকে তোমাদের জন্য চাইবে। ব্যস, এক দুই শ মোটরসাইকেল নিয়ে নেতা-কর্মী তার বাড়িতে গিয়ে তার ভাইকে উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে চাইবে তাই তার ভাই কে উপজেলা চেয়ারম্যান করার অনুমতি দিয়েছেন। এটা তার কৌশল।’

এ বিষয়ে দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী যুব লীগের সভাপতি ও চেয়ারম্যান প্রার্থী বুলবুল আহমেদ টোকেন চৌধুরী বলেন, উপজেলার সব নেতাকর্মী এমপি সাহেবের বাড়িতে গিয়ে আমাকে উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী করতে অনুরোধ করেছেন, এভাবেই জনগণের চাপেই আমি প্রার্থী হয়েছি। আপাতত উপজেলা নির্বাচন নিয়েই ব্যস্ত আছি।

শেয়ার করুন